“মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন তৈরি করে দ্বিতীয় ঢেউ আটকাতে হবে”, প্রধানমন্ত্রীর করোনা-বার্তা, বৈঠকে অনুপস্থিত মুখ্যমন্ত্রী

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, নিউ দিল্লি, ১৭ মার্চ: “করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রুখে দিতেই হবে”, মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে আজ এই চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, পাঞ্জাব, কেরালা, কর্ণাটক সহ বিভিন্ন রাজ্যে যেভাবে ফের মাথাচাড়া দিয়েছে করোনা, তাতেই দেশ জুড়ে দুঃশ্চিন্তার রেখা দেখা দিয়েছে। তাই, করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউ রুখে দিতে বদ্ধপরিকর কেন্দ্রীয় সরকার। কিভাবে সংক্রমণ রুখে দেওয়া সম্ভব, সেসব নিয়েই আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী’দের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করলেন। তিনি বললেন, “মহারাষ্ট্র সহ বিভিন্ন রাজ্যে সংক্রমণ বাড়ছে। মাস্ক পরার উপর জোর দিতে হবে। RT-PCR টেস্ট বাড়াতে হবে। প্রয়োজনে, মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন তৈরি করতে হবে। ভ্যাকসিন যাতে নষ্ট না হয় সেদিকে নজর দিতে হবে।” প্রসঙ্গত, এই মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন আসলে, সংক্রমিত এলাকাটিকে যথাসম্ভব ছোটো আকারে গন্ডীবদ্ধ করা। আগের মতো, এখন আর বড় আকারে কনটেনমেন্ট জোন করার প্রয়োজন নেই! এই পদ্ধতিতেই সংক্রমণ রুখে দেওয়ার বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

thebengalpost.in
প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল বৈঠক :

এদিকে, করোনা সংক্রমণ বাড়ছে পশ্চিমবঙ্গেও। গত চব্বিশ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ২৫৫ জন। উল্লেখ্য যে, গত কয়েকদিন ধরেই গড়ে ২৬০ থেকে ২৮০ জন করে করোনা সংক্রমিত হচ্ছেন রাজ্যে। তবে, গত চব্বিশ ঘণ্টায় রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে মাত্র ২ জনের। এদিনের ভার্চুয়াল বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৬ টি রাজ্যের তরফে প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাব দেওয়া হয়, ৪৫ উর্ধ্বদের ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়ে। সম্মতি দেন প্রধানমন্ত্রী। সমস্ত রাজ্যের প্রতিই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ বার্তা দেন, “মানুষই করোনা’কে রুখে দিয়েছে। মানুষকে বোঝাতে হবে। কোনোভাবেই করোনা সংক্রমণ বাড়তে দেওয়া যাবেনা। টেস্টের সংখ্যা বাড়াতে হবে। সংক্রমিতদের খুঁজে বের করতে হবে। কোনোভাবেই অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসী হওয়া চলবেনা।” অন্যদিকে, ঝাড়গ্রাম থেকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আমি সবাইকে বিনা পয়সায় ভ্যাকসিন দিতে চেয়েছি। কিন্তু, প্রধানমন্ত্রী ভ্যাকসিন পাঠাচ্ছে না।” তবে, এ রাজ্যেও তৃতীয় পর্যায়ের টিকাকরণ কর্মসূচি বা ভ্যাকসিনেশন প্রক্রিয়া সফলভাবে চলছে বলেই জানা গেছে।

আরও পড়ুন -   ভগবান রাম "নেপালি", "ভারতীয়" নন! চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী