ভোট পরবর্তী হিংসা অব্যাহত পশ্চিম মেদিনীপুরে! সবংয়ে আক্রান্ত মহিলা তৃণমূল কর্মী মানসী জানা সহ একাধিক

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ৩ এপ্রিল: ভোট-পরবর্তী হিংসা অব্যাহত পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায়। আজ বিকেল ৫ টা নাগাদ সবংয়ের মোহাড় ১১ নং অঞ্চলের দুবরাজপুর গ্রামে ভোট পরবর্তী হিংসায় আহত তৃণমূলের সক্রিয় মহিলা কর্মী মানসী জানা, দিলীপ পাত্র সহ মোট ৩ জন। গুরুতর আহত মানসী জানা’কে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে রাত্রি ৮ টা নাগাদ। বাকি ২ জন সবং গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এই হামলা চালিয়েছে। যদিও জেলা বিজেপির তরফে বলা হয়েছে, তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব! এদিকে, শাসকদলের তরফে সবং থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

thebengalpost.in
আহত তৃণমূল কর্মী মানসী জানা :

উল্লেখ্য যে, ২০১৬ সালে রাজনৈতিক হিংসার বলি হয়েছিলেন সবংয়ের সক্রিয় তৃণমূল কর্মী জয়দেব জানা। সেই জয়দেব জানার স্ত্রী মানসী জানা (পেশায় স্বাস্থ্যকর্মী) আজ হাসপাতাল থেকে নিজের ডিউটি সেরে ফেরার সময় আক্রান্ত হন দুষ্কৃতীদের দ্বারা। তৃণমূলের জেলা যুব সভাপতি প্রসেনজিৎ চক্রবর্তী মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে দাঁড়িয়ে অভিযোগ করলেন, “আমাদের সক্রিয় মহিলা কর্মী মানসী জানা যখন সবং হাসপাতাল থেকে ডিউটি সেরে ফিরছিলেন, সেই সময় তার উপর নৃশংস হামলা চালিয়েছে বিজেপির হার্মাদরা। একজন মহিলা কর্মী’র উপর লোহার রড, বাঁশ নিয়ে হামলা চালানো হয়। তাঁকে প্রায় মেরেই ফেলা হচ্ছিল! তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হন আমাদের দলের সদস্য দিলীপ পাত্র সহ আরো দু’এক জন। এভাবে মহিলা কর্মীর উপর নৃশংস হামলা চালিয়ে, বিজেপি নিজেদের কুৎসিত রূপ রাজ্যবাসীর কাছে প্রকাশ করে দিল!” এই ঘটনায় এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা ছড়িয়েছে। পুলিশ পদক্ষেপ গ্রহণ করছে বলে জানা যায়।

thebengalpost.in
মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে :

আরও পড়ুন -   শুধু শিক্ষাদান করে নয়, শিক্ষা ও সমাজে স্বতন্ত্র রূপকথা নির্মাণ করেই পশ্চিম মেদিনীপুর থেকে পাঁচ "শিক্ষারত্ন"