তমলুকের পর ময়নার বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দাও আক্রান্ত

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পূর্ব মেদিনীপুর, ৩০ মার্চ: প্রথম দফার নির্বাচন শেষ। কাল বাদ পরশু দ্বিতীয় দফার নির্বাচন। এর মধ্যেই রাজনৈতিক হিংসা অব্যাহত দুই মেদিনীপুরে। পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুর, মেদিনীপুর সদর ও গড়বেতায় রাজনৈতিক হিংসার পর পূর্ব মেদিনীপুরেও রাজনৈতিক হিংসার ঘটনা অব্যাহত। সারাদিন ধরেই উত্তপ্ত ছিল নন্দীগ্রাম। দফায় দফায় বিজেপি-তৃণমূলের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের পরিস্থিতির তৈরি হয়। কেন্দ্রীয় বাহিনীর তৎপরতায় বড় হিংসা এড়ানো গেলেও, পূর্ব মেদিনীপুরের দুই বিজেপি প্রার্থী, যথাক্রমে তমলুকের হরেকৃষ্ণ বেরা এবং ময়নার অশোক দিন্দা আক্রান্ত হলেন তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হাতে। আজ বিকেলে প্রচার সেরে ফেরার পথে আক্রান্ত হন ময়নার বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দা। তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি করা হয়। কোনোমতে নিজেকে রক্ষা করে , ঘটনাস্থল থেকে বেরিয়ে আসেন অশোক। আক্রমণের ঘটনায় ময়নার বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দা বলেন, “৪ টে পর্যন্ত শেষ প্রচার ছিল, আমরা ফিরছিলাম। ময়না বাজারে হঠাৎ করেই গাড়ি ঘেরাও করা হয়। আমার গাড়ির অবস্থা দেখতেই পাচ্ছেন। আমার ঘাড়ে এসে জোরে একটা ইট লাগে। আমার ভাইয়ের হাত কেটে গেছে। গাড়ির কাচ ভেঙে গেছে। কোনওরকমে পালিয়ে বেঁচেছি। তৃণমূলের লোকজন তো এভাবে সন্ত্রাসের আশ্রয়েই চলছে। এটাই তো এদের পরিচয়। আমরা হিংস্র নয়। আমরা তো এমন করতে পারব না। এবার মানুষ কী করবেন, মানুষই সিদ্ধান্ত নেবেন।” আশোক দিন্দা আরও জানান, “আমি কোনওরকমে গাড়ি চালিয়ে বিডিও অফিসে আশ্রয় নিয়েছি।”

thebengalpost.in
বিজেপি প্রার্থী হরেকৃষ্ণ বেরা’র সঙ্গে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ :

অন্যদিকে, তমলুক বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী মারধর খেয়ে ভর্তি হলেন আইসিইউতে! অভিযোগের তির তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীর দিকে। সোমবার রাতে এই ঘটনাটি ঘটেছে তমলুক থানার সামনে। তমলুকের বিজেপি প্রার্থী হরেকৃষ্ণ বেরাকে থানার সামনেই মারধরের অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে। যদিও তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই হামলার অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে আহত হরেকৃষ্ণবাবুকে হাসপাতালে দেখতে আসেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। প্রার্থীর উপর হামলার প্রতিবাদে পথ অবরোধের হুঁশিয়ারিও দেন তিনি। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, তমলুক থানার সামনেই আক্রান্ত হয়েছেন তমলুকের বিজেপি প্রার্থী হরেকৃষ্ণ বেরা। রাতে প্রচার সেরে তমলুক থানায় যাচ্ছিলেন হরেকৃষ্ণবাবু। সেই সময় তাঁর ওপর হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। মারধরে মাথা ফেটে যায় হরেকৃষ্ণবাবু। ঘটনার পর আহত বিজেপি প্রার্থীকে উদ্ধার করে তমলুক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আরও পড়ুন -   মেদিনীপুরে জালে পড়ল কুমির ছানা! মা কুমির কাছেই থাকতে পারে মত বিশেষজ্ঞদের