সারা দেশ জুড়ে ATM লুট করা কুখ্যাত ৩ দুষ্কৃতীকে ডেবরা সীমান্ত থেকে গ্রেপ্তার! বড়সড় সাফল্য জেলা পুলিশের, পুরস্কৃত দুই ওসি

বিজ্ঞাপন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১০ ফেব্রুয়ারি: রীতিমতো সিনেমাটিক স্টাইলে এটিএম লুটকারী ৩ দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশ! গতকাল (মঙ্গলবার) রাতে, দাসপুর-ডেবরা সীমান্ত এলাকা (জ্যোতিসব) থেকে ভিন রাজ্যের তিন জন দুষ্কৃতী’কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে সাংবাদিক বৈঠক করে জানালেন জেলা পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার। তিনি জানালেন, মঙ্গলবার রাতে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাসপুর থানার গৌরা’র একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের এটিএম থেকে টাকা লুট করার চেষ্টা করে দুষ্কৃতীরা। সেখান থেকে সঙ্গে সঙ্গে দাসপুর থানায় ফোন করে খবর দেন কোনও এক স্থানীয় বাসিন্দা। দ্রুত বাহিনী নিয়ে রওনা হয়ে যান দাসপুর থানার ওসি অমিত মুখোপাধ্যায়। খবর দিয়ে দেওয়া হয় ডেবরা থানাতেও। সেখান থেকে বাহিনী দিয়ে রওনা হয়ে যান ওসি প্রণব পাত্র। দাসপুর-ডেবরা সীমান্ত এলাকা থেকে একটি চারচাকা গাড়ি সমেত তিন দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করা হয়! কুখ্যাত এই তিন এটিএম (ATM) লুটেরা দুষ্কৃতী হল যথাক্রমে- ইমতিয়াজ আলী, মুস্তাক মোল্লা এবং মিঠুন রায়। তিনজন যথাক্রমে- বিহার, হরিয়ানা ও আসামের বাসিন্দা। প্রসঙ্গত, এই তিন দুষ্কৃতীই ২০২০ সালের ১৯ শে অক্টোবর ডেবরাতে একটি এটিএম ভেঙে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা লুট করে পালিয়েছিল। সেবার অল্পের জন্য তারা একটি হন্ডা সিটি গাড়িতে করে বিহারের দিকে পালিয়ে গিয়েছিল বলে জানালেন জেলা পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার। সেই সময় থেকেই জেলা পুলিশ ওঁতপেতে বসেছিল বলেও তিনি জানিয়েছেন।

thebengalpost.in
পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশের বড়সড় সাফল্য :

বিজ্ঞাপন
[ আরও পড়ুন -   এবার শুধু মাস্ক নয়, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশের কর্মীরা জামা তৈরি করে বিতরণ করছেন অসহায় বাচ্চাদের, গত দু'দিনে সাত হাজার মানুষের হাতে নতুন পোশাকও তুলে দিল জেলা পুলিশ ]

বুধবার সন্ধ্যায় মেদিনীপুর শহরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার বলেন, “তিনজনের কাছ থেকে একটি বন্দুক, দুই রাউন্ড গুলি, গ্যাস কাটার যন্ত্র সহ এটিএম ভাঙার বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। এরা সারা ভারতবর্ষ জুড়ে এটিএম লুট করার কাজ করে। এরা যে গাড়িতে করে এসেছিল সেই গাড়ির নম্বরটিও জাল। যখন যে রাজ্যে ডাকাতি করে সেই রাজ্যের নম্বর প্লেট ব্যবহার করে এরা। দাসপুর ও ডেবরা থানার পুলিশ যৌথ উদ্যোগে গাড়ি সহ দুষ্কৃতীদের পাকড়াও করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা অপরাধ স্বীকার করেছে।” প্রসঙ্গত, সম্প্রতি মেদিনীপুর শহরের কুইকোটা কিংবা হাওড়ার বাগনান প্রতিটি ক্ষেত্রেই এই গ্যাং জড়িত বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। এই বড়সড় সাফল্যর জন্য, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ডেবরা ও দাসপুর থানাকে ২০ হাজার টাকা করে পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে। প্রতিটি থানাকেই উৎসাহিত করার জন্য এই পুরস্কার বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার।

thebengalpost.in
উদ্ধার পিস্তল :

thebengalpost.in
উদ্ধার একাধিক সরঞ্জাম :

Advertisements
[ আরও পড়ুন -   কর্তব্যরত অবস্থায় কলাইকুন্ডার বায়ুসেনার কর্মী আত্মহত্যা করলেন, মাত্র ২২ বছরের জওয়ানের মৃত্যুতে শোকের ছায়া সর্বত্র ]

Advertisements