ভারতে দৈনিক সংক্রমণ সাড়ে তিন লক্ষ! “বিপদ” এর দিনে পাশে থাকার বার্তা পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরানের

দ্য বেঙ্গল পোস্ট বিশেষ প্রতিবেদন, ২৪ এপ্রিল: করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে একটানা তিনদিন দেশে ৩ লক্ষেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন এই মারণ ভাইরাসে। স্রেফ ৩ দিনেই দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ১০ লক্ষ। সংক্রমণের প্রাবল্যে ক্রমশই পরিস্থিতি জটিল হচ্ছে ভারতে। শনিবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩ লক্ষ ৪৬ হাজার ৭৮৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৬২৪ জনের। পাশাপাশি, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনামুক্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৩৮ জন। যা দৈনিক আক্রান্তের থেকে অনেকটাই কম। এমতাবস্থায়, এই অদৃশ্য “শত্রু”র বিরুদ্ধে ভারতবাসীর লড়াইকে সংহতি জানিয়ে টুইট করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সমালোচকরা বলছেন, ‘অদৃশ্য শত্রু’ অন্তত ‘প্রতিবেশী শত্রু’র মুখ দিয়েও মানবতার বার্তা এনে দিতে সক্ষম হল!

thebengalpost.in
ইমরানের টুইট :

শনিবার ভারতের করোনা পরিস্থিতির ওপর উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি টুইটে লেখেন, “ভারতে কোভিড-১৯-এর দ্বিতীয় ঢেউ বিপজ্জনক, তার বিরুদ্ধে ভারতবাসীকে যে কঠিন লড়াই করতে হচ্ছে, তার প্রতি সংহতি জানাচ্ছি। প্রতিবেশী দেশ ভারত ও বিশ্বজুড়ে করোনা আক্রান্তদের দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য প্রার্থনা করছি আমরা। এই কঠিন চ্যালেঞ্জের বিরুদ্ধে মানবতার লড়াইয়ে আমাদের এক জায়গায় হতে হবে।” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রতিবেশী রাষ্ট্র পাকিস্তানেও করোনার সংক্রমণ দিন দিন বাড়ছে। প্রতিদিন সংক্রমিত হচ্ছেন কয়েক হাজার মানুষ। তবে, ২২ কোটির দেশ পাকিস্তানে ভারতের তুলনায় সংক্রমণের হার অনেকটাই কম। অন্যদিকে, গত মাসেই টিকা নেওয়ার পরও করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন স্বয়ং পাক প্রধানমন্ত্রী। তিনি অবশ্য ভারত থেকে নয় চীন দেশ থেকে টীকা আমদানি করেছিলেন! এদিকে, ভারতের করোনা পরিস্থিতির ওপর নজর রেখে সমস্ত রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন একাধিক দেশের রাষ্ট্রপ্রধান। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর পাশাপাশি, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনও ভারতের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।

আরও পড়ুন -   চিন ও পাকিস্তানকে টেক্কা দিতে জলে নামল ভারতের পঞ্চম স্করপেন সাবমেরিন ‘INS Vagir’