“দুধ মাঙ্গোঙ্গে তো ক্ষীর দেঙ্গে, কেশপুর-নন্দীগ্রাম মাঙ্গোঙ্গে তো চির দেঙ্গে”, শুভেন্দুকে নিশানা করে কেশপুরে মদন

বিজ্ঞাপন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, কেশপুর, ২২ জানুয়ারি: পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুর ব্লকের আনন্দপুরের যে ময়দানে গতকাল (২২ জানুয়ারি) শুভেন্দু অধিকারী সভা করেছিলেন, সেই একই ময়দানে আজ পাল্টা সভা করল তৃণমূল। প্রধান বক্তা হিসেবে ছিলেন মদন মিত্র, দেবাংশু ভট্টাচার্য। এছাড়াও, উপস্থিত ছিলেন, পশ্চিম মেদিনীপুরে বিধায়ক, সাংসদ, জেলা সভাপতি ও যুব নেতৃত্বরা। গতকালের মতো এদিনও সভাস্থল ছিল কানায় কানায় পূর্ণ। মদন মিত্র এদিন সরাসরি আক্রমণ করেন শুভেন্দু অধিকারী, মুকুল রায় দের। দু’জনেই সারদা-নারদা তে অভিযুক্ত বলে তিনি ব্যঙ্গ করেন। নরেন্দ্র মোদীরা নিজেদের ‘গরু’র পূজারী বলে প্রচার করেও, তাঁর আমলেই কেন সবথেকে বেশি গরুর মাংস বিদেশে রপ্তানি করা হয়েছে, সেই প্রশ্ন তোলেন। একইসাথে, তিনি তথ্য দিয়ে দেখিয়ে দেন, বিদেশে রপ্তানি করা গরুর মাংস কোম্পানিগুলির মালিক বিজেপি ঘনিষ্ঠ হিন্দু ব্যবসায়ীরা।

thebengalpost.in
মদন মিত্র কেশপুরে :

বিজ্ঞাপন
[ আরও পড়ুন -   লঞ্চ হল ভারতের সবচেয়ে স্বল্পমূল্যের 5G ফোন Moto G 5G, দাম মাত্র ₹২০,৯৯৯ ]

কেশপুরের এই সভায় এদিন আপাদমস্তক আক্রমণাত্মক ছিলেন মদন মিত্র। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের নাম না করে, হুমকি দেন, “ফের যদি তলোয়ার হাতে দেখেছি, তলোয়ার কেড়ে নিতে পারলে, পাঞ্জাটা কেটে নেব। হ্যাঁ, প্রেসের সামনে বলছি।” আর, শুভেন্দু অধিকারী’কে উদ্দেশ্য করে বলেন, “দুধ মাঙ্গোঙ্গে তো ক্ষীর দেঙ্গে, শুভেন্দু লোগ কেশপুর-নন্দীগ্রাম মাঙ্গোঙ্গে তো চির দেঙ্গে।” এরপরই, বিতর্ক এড়াতে তিনি বলেন, “আমি কি চিরে দেব, জনগণ চির দেবে। ভোট চাইতে এলে, এমন থাপ্পড় মারবে মাথা ঘুরিয়ে দেবে!” শুভেন্দু’কে আক্রমণ করতে গিয়ে অবশ্য ভুল তথ্য দিয়ে বসেন মদন মিত্র। তিনি বলেন, “মিড ডে মিলে স্কুলের বাচ্চাদের দুধ দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়!” মদন মিত্রের এই তথ্যে মাথায় হাত রাজ্যের স্কুল শিক্ষক ও অভিভাবকদের!

thebengalpost.in
দেবাংশু ভট্টাচার্য :

Advertisements
[ আরও পড়ুন -   দূরত্ব বজায় রেখে 'আন্তর্জাতিক যোগ দিবস' পালিত হল পূর্ব থেকে পশ্চিম, শহর থেকে জঙ্গলমহলে ]

Advertisements