শালবনীতে দিলীপ, মেদিনীপুরে মমতা, খড়্গপুরে বিমল গুরুং! ঝড় উঠল ‘শেষ লগ্নে’, বিতর্কেরও ‘হইলনা শেষ’

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২৫ মার্চ: প্রথম দফায় পশ্চিম মেদিনীপুরের ৬ টি বিধানসভায় শনিবার (২৭ শে মার্চ) নির্বাচন। আজ (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যা ৬ টা ২০ মিনিটে শেষ হল প্রচারের সময়সীমা। শেষ লগ্নে প্রচারে ঝড় তুলল সব দলই। তবে, প্রচার শেষ হলেও বিতর্কের ‘হইলনা শেষ’! স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে মেদিনীপুরের সাংসদ তথা বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ কিংবা গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার বিমল গুরুং, প্রচারে এসে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকলেন সকলেই। কারুর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল, আদর্শ আচরণবিধি লংঘন করে মঞ্চ থেকে ‘প্রতিশ্রুতি’ দেওয়ার, আবার কারুর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পরও প্রচার চালিয়ে যাওয়ার!

thebengalpost.in
মেদিনীপুরে মমতা :

মেদিনীপুর বিধানসভার প্রার্থী জুন মালিয়া’র সমর্থনে আজ মেদিনীপুরের জনসভায় উপস্থিত হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একেবারে শেষ লগ্নের প্রচারে দলনেত্রী’কে পেয়ে উচ্ছ্বসিত স্বয়ং প্রার্থী থেকে নেতা-কর্মী-সমর্থকেরা। সবকিছুই ঠিক ছিল, কিন্তু পুরুলিয়ার পর এদিন মেদিনীপুরের মঞ্চ থেকেও ‘প্রতিশ্রুতি’ দিয়ে বিতর্কে জড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী। পুরুলিয়াতে বলেছিলেন, বিজেপির টাকা ওড়ানো (টাকা দিয়ে ভোট কেনা) ধরে দিতে পারলে, তিনি ‘পুরস্কার’ দেবেন। আর এদিন মেদিনীপুরে বললেন, ভোট বাক্স যে কর্মীরা ভালো করে ‘পাহারা’ দেবে, তাদের তিনি ভালো কিছু ‘ব্যবস্থা’ করে দেবেন! আর এ নিয়েই বিতর্ক তৈরি হয়েছে। বিরোধীরা মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আদর্শ আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ করেছেন। তবে নির্বাচন কমিশনে ‘অভিযোগ’ হয়নি বলেই সর্বশেষ খবর। অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় খড়গপুর গ্রামীণ বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী দীনেন রায়ের সমর্থনে প্রচার করতে আসেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার নেতা বিমল গুরুং। সঙ্গে ছিলেন রোশন গিরি। খড়্গপুরের সালুয়া, গোপালী, প্রেম বাজার সহ নেপালী অধিবাসী অধ্যুষিত এলাকার ভোটব্যাঙ্ক কাছে টানতেই এই আয়োজন! তবে, যাকে ধরতে গিয়ে রাজ্য পুলিশের এসআই অমিতাভ মালিকের এনকাউন্টারে মৃত্যু হয়েছিল, সেই বিমল গুরুং এর দলের সাথে জোট করার পর থেকেই বিতর্ক পিছু ধাওয়া করছে তৃণমূলের। আর বৃহস্পতিবারও বিতর্ক বাড়ল বই কমলনা! বিরোধীদের অভিযোগ, সন্ধ্যা সাড়ে ছ’টা পেরিয়ে যাওয়ার পরও গুরুং এর সভার কাজ চলেছে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

thebengalpost.in
খড়্গপুরে বিমল গুরুং :

অন্যদিকে, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বৃহস্পতিবার উপস্থিত হয়েছিলেন শালবনী ও মেদিনীপুর বিধানসভার দুই প্রার্থী যথাক্রমে রাজীব কুন্ডু ও শমিত দাশের সমর্থনে রোড শো’তে অংশগ্রহণ করার জন্য। বিপুল জনসমাগম হল রোড শো’তে। তবে শেষ লগ্নে বিতর্কেও জড়ালেন। তাঁর বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগ, অনুমতি ছাড়াই বাইক মিছিল করা হয়েছে। তাঁর গাড়ির সামনেই ছিল বাইক র‍্যালি। দ্বিতীয় অভিযোগ হল, সন্ধ্যা সাড়ে ছ’টার পরও মেদিনীপুর বিধানসভার প্রার্থী’র সমর্থনে কাশীজোড়া সংলগ্ন এলাকায় প্রচার চালিয়েছেন তিনি। যদিও, বিজেপি’র তরফে অভিযোগ অস্বীকার করে জানানো হয়েছে, প্রচার শেষ করে তাঁরা ফিরছিলেন। এ বিষয়ে ব্লক নির্বাচন আধিকারিক তথা বিডিও কে ফোন করা হলেও, তিনি ব্যস্ততার কারণে ফোন কেটে দিয়েছেন।

thebengalpost.in
তখনও শেষ লগ্নের প্রচার চলছে :

আরও পড়ুন -   দীর্ঘদিনের বান্ধবীর সাথেই বিবাহ-বন্ধনে আবদ্ধ হলেন বরুণ