খড়্গপুরের ‘বেটা’ খোকনের নতুন স্লোগান “সাচ্চা হ্যায় আচ্ছা হ্যায়”, মনখারাপ মুনমুনের

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ৫ মার্চ: সবেমাত্র তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছেন দলের প্রার্থী তালিকা। খড়্গপুর সদরে পুনরায় প্রার্থী করা হয়েছে, এই এলাকার বিধায়ক তথা পৌরসভার প্রশাসক প্রদীপ সরকার’কে। রাজনৈতিক সমালোচকেরা বলছেন, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ১৫ টি আসনের মধ্যে তৃণমূলের পক্ষে যে কটি আসন রয়েছে, তার মধ্যে এক্কেবারে প্রথমে খড়্গপুর সদর। সারাবছর মানুষের পাশে থাকা, সমস্ত রাজনৈতিক দলের কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে সুসম্পর্ক এবং স্বচ্ছ ভাবমূর্তি নিয়ে এগিয়ে চলা খড়্গপুরের ঘরের ছেলে খোকন (প্রদীপ সরকার) তাই এবারও জেতার বিষয়ে একশো শতাংশ আত্মবিশ্বাসী! গত লোকসভা নির্বাচনে (২০১৯) শাসকদলের একপ্রকার ভরাডুবির পরেও, উপনির্বাচনে খড়্গপুর সদর আসনটি বিজেপির কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছিলেন তিনি। শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বে সেই বিধানসভা উপ-নির্বাচনের যুদ্ধে প্রদীপের স্লোগান ছিল, “নেতা নেহি বেটা হ্যায়!” প্রভাবিত করেছিল সাধারণ খড়্গপুর বাসীকে। হাসতে হাসতে জিতে গিয়েছিলেন প্রদীপ। তাই এবারও তাঁর নাম ঘোষণার পর, নিজেই ‘প্রদীপ’ এর মাঝে প্রদীপ সরকার চিত্রিত করে, দেওয়াল লিখন শুরু করে দিলেন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানিয়ে দিলেন তাঁর এবারের নতুন স্লোগান।

thebengalpost.in
প্রদীপ সরকার :

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, খড়্গপুরের খোকন (প্রদীপ সরকার) এর সঙ্গে সমস্ত রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী-সমর্থকদের সুসম্পর্ক। সম্প্রতি, লেনিনের মূর্তি উন্মোচন হোক কিংবা বিজেপি নেতা অসুস্থ প্রেমচাঁদ ঝা’র সাথে সাক্ষাৎ করে তাঁর শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেওয়াই হোক, সবদিক দিয়েই নজর কেড়েছেন প্রদীপ। এবার হয়তো তাঁর ‘রথের সারথি’ তথা উপ নির্বাচনের ভোট যুদ্ধের অন্যতম সেনাপতি শুভেন্দু অধিকারী বিরোধী দল বিজেপি তে, কিন্তু দমে যাওয়ার পাত্র নন প্রদীপ। তাই, নতুন স্লোগান নিয়ে নেমে পড়লেন ময়দানে। তাঁর নতুন স্লোগান, “”সাচ্চা হ্যায় আচ্ছা হ্যায়, চলো সাথ চলতে হ্যায়”। এবার শুধু এটাই দেখার, খোকনের এই নতুন স্লোগান খড়্গপুর বাসীকে কতখানি প্রভাবিত করতে পারে!

thebengalpost.in
দেবাশিস চৌধুরী’র ফেসবুক পোস্ট :

অন্যদিকে, প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পরই, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার একাধিক তৃণমূল নেতা মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন বা হতাশ হয়েছেন বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা! কারণ, জেলার বেশকিছু হেভিওয়েট নেতা এবার রীতিমতো আশায় ছিলেন, বিধানসভা নির্বাচনের টিকিট তাঁরা পেতে চলেছেন। বিশেষত তাঁদের নামগুলি নিয়ে জল্পনাও চলছিল। কিন্তু, চূড়ান্ত তালিকায় তাঁদের নাম না থাকায়, সমাজ মাধ্যমে ক্ষোভ বা দুঃখ প্রকাশ করেছেন তাঁদের অনুগামীরা। বেশ কিছু ক্ষেত্রে নিজেরাও। যেমন, জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র দেবাশিস চৌধুরী (মুনমুন) তাঁর নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লিখেছেন, “বারবার বিশ্বাসের জায়গায় আঘাত করতে নেই!” সহজেই অনুমেয় যে, তৃণমূল কংগ্রেসের দীর্ঘদিনের লড়াকু সৈনিক দেবাশিস বাবু প্রার্থী তালিকায় নিজের নাম না দেখে হতাশ হয়েছেন! উল্লেখ্য যে, সম্প্রতি তাঁর মাতৃবিয়োগ হয়েছে (গত ২৬ ফেব্রুয়ারি), এমনিতেই তাঁর মনখারাপ। তাই, এই মুহূর্তে তিনি সংবাদমাধ্যমে কোনো প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি, পরে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন -   আগামী বছরের গোড়াতেই ভারতে করোনা ভ্যাকসিন! মূল্য হতে চলেছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, লকডাউনের আর 'প্রয়োজন নেই' বলে জানালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী