পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রায় দেড় লক্ষ মানুষ ত্রাণ শিবিরে! দাঁতনের ত্রাণ শিবির পরিদর্শনে জেলা পুলিশ সুপার

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২৫ মে: শক্তি বাড়িয়ে “যশ” আসছে! এই মুহূর্তে দীঘা থেকে ৪০০ কিলোমিটারের (৩৭০ কিলোমিটার) কাছাকাছি দূরত্বে অবস্থান করছে Yaas। আগামী ১০-১২ ঘন্টার মধ্যেই পৌঁছে যেতে ওড়িশা উপকূলের একেবারে কাছাকাছি। ল্যান্ডফল করতে পারে বুধবার সকাল থেকে দুপুরের মধ্যে। তার আগেই ওড়িশা ও দুই মেদিনীপুরের উপকূলবর্তী এলাকাগুলিতে ব্যাপক ঝড়-বৃষ্টির তাণ্ডব শুরু হয়ে গেছে। ওড়িশা সংলগ্ন পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতনেও চলছে যশ তাণ্ডব। দাঁতনের পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে, মঙ্গলবার সকালে দাঁতন থানার ঘোলাই, মনোহরপুরের বিভিন্ন ত্রাণশিবির পরিদর্শন করলেন জেলা পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার। তিনি জানালেন, “এখনও পর্যন্ত ১০৩১ টি ত্রাণশিবিরে ১ লক্ষ ৪০ হাজারের বেশি মানুষকে সরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। এখনও চলছে উদ্ধারের কাজ। জেলা পুলিশের ১৭৮ টি টিম ছাড়াও ৭ টি NDRF ও ২ টি SDRF টিম এসে পৌঁছেছে। তাদের কাজে লাগানো হবে পরিস্থিতি অনুযায়ী। জেলা প্রশাসন তৎপর আছে। আতঙ্কিত হবেন না, প্রশাসনের সঙ্গে সহযোগিতা করুন।” প্রসঙ্গত, গতকাল মধ্যরাতে কেশিয়াড়িতে পৌঁছে জেলাশাসক ডঃ রশ্মি কমল জানিয়েছিলেন, “এখনও পর্যন্ত ৮০ হাজার মানুষকে উদ্ধার করা হয়েছে।” আরও ৪০ হাজার মানুষকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেল পুলিশ সুপারের কথা অনুযায়ী।

thebengalpost.in
দাঁতনে জেলা পুলিশ সুপার :

অন্যদিকে, সকাল থেকেই প্রবল জলোচ্ছ্বাসে উত্তাল হয়ে উঠেছে দীঘার সমুদ্র। পূর্ব মেদিনীপুর ও সংলগ্ন এলাকা জুড়ে ঝড়-বৃষ্টির তাণ্ডব চলছে। ৪০-৭০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া সঙ্গে ব্যাপক বৃষ্টিপাত চলছে পূর্ব মেদিনীপুরের উপকূলবর্তী এলাকাগুলি সহ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাঁতন, মোহনপুর, মনোহরপুর, কেশিয়াড়ি, ঝাহালদা, খাকুড়দা সহ বিস্তীর্ণ এলাকায়। পশ্চিম মেদিনীপুর সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় দফায় দফায় বৃষ্টিপাত চলছে, সঙ্গে ২০-৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া। অন্যদিকে, ঝাড়গ্রাম সহ জঙ্গলমহলেও আজ সন্ধ্যা থেকে শুরু হবে প্রবল বৃষ্টিপাত। আগামীকাল তা আরো বাড়বে‌ বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাঞ্চলীয় শাখা।

thebengalpost.in
দীঘায় প্রবল জলোচ্ছ্বাস :

আরও পড়ুন -   করোনা আক্রান্ত পরিবারের উপর হামলার অভিযোগ পশ্চিম মেদিনীপুরে, আহত ৩ জন