পশ্চিম মেদিনীপুরে পুলিশের মানবিক মুখ! নিজের গাড়ি থেকে নেমে অসুস্থ ভবঘুরেকে সুস্থ করলেন SDPO, তোলা আদায়ের শাস্তি পেল অভিযুক্তরা

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২০ মে: ফের একবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশের মানবিক মুখ ফুটে উঠল আর্তের সেবা করার মধ্য দিয়ে! অসহায় এক তবঘুরেকে এই চড়া রোদের মধ্যে , একপ্রকার অসুস্থ অবস্থায় রাস্তার পাশে বসে থাকতে দেখেন খড়্গপুরের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক (SDPO) দীপক সরকার। দেখতে পেয়েই তিনি নিজের গাড়ি থেকে নেমে গিয়ে ওই ভবঘুরে ব্যক্তিটিকে নিকটবর্তী পুলিশ ছাউনিতে নিয়ে গিয়ে খাবার-দাবার ও জলের ব্যবস্থা করেন এবং জানিয়ে দেন যতক্ষণ না বাড়ির লোকের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে, সে এই ছাউনিতেই থাকবে!

thebengalpost.in
অসহায় ভবঘুরেকে সেবা ও শুশ্রূষা করা হল :

প্রসঙ্গত, আইআইটি খড়্গপুর সংলগ্ন পুরী গেট এলাকায় আজ দুপুরে এই ঘটনাটি ঘটে। ওই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন খড়্গপুরের SDPO দীপক সরকার। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ASI উৎপল ব্যানার্জি। সেইসময় ভরখর রোদের মধ্যে তাঁরা দেখেন, এক অসহায় মানুষ প্রায় অসুস্থ অবস্থায় বসে আছেন! সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি থেকে নেমে এগিয়ে যান তাঁরা। ওই ব্যক্তির নাম-পরিচয় জানতে চান। কিন্তু, তিনি তা বলতে পারেন নি! অগ্যতা নিকটবর্তী পুলিশ ছাউনিতেই আশ্রয় হয় ওই ব্যক্তির। দেওয়া হয় খাবার-দাবার। অনেকটাই সুস্থ হয় ওই ভবঘুরে ব্যক্তি। এভাবেই, পশ্চিম মেদিনীপুর বাসী ফের একবার পুলিশ প্রশাসনের মানবিক মুখে মুগ্ধ হল!

thebengalpost.in
তোলা আদায়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা :

অপরদিকে, আজ পৃথক একটি ঘটনায় খড়্গপুর জি আর পি থানার দায়িত্ব সচেতনতা ও কর্তব্যনিষ্ঠার পরিচয় পাওয়া গেছে। সম্প্রতি, খড়্গপুর স্টেশনে ট্রেন থেকে নামা কয়েকজন পরিযায়ী শ্রমিকদের কাছ থেকে “তোলা আদায়” এর অভিযোগ উঠেছিল কর্তব্যরত এক পুলিশ কনস্টেবল ও ৫ জন সিভিক পুলিশের বিরুদ্ধে। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে এই অভিযোগ উঠে আসার পরই সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয় জিআরপি কর্তৃপক্ষ। ওই ৬ বিরুদ্ধেই সাময়িক সাসপেনশন আনা হয়, তদন্ত চলা অবধি। যদিও এই বিষয়ে কর্তৃপক্ষের তরফে কোনও বিবৃতি পাওয়া যায়নি, তবে সূত্র মারফত এই খবর পাওয়া গেছে।

আরও পড়ুন -   কোভিডে কুপোকাত মেদিনীপুর শহরের মির্জাবাজার! সবজি বাজার অন্যত্র সরানোর দাবিতে স্মারকলিপি এলাকাবাসীর, উদ্যোগ নিল প্রশাসন