ভোট শুরু হয়ে গেল ঝাড়গ্রাম ও পূর্ব মেদিনীপুরে, পশ্চিমে আজ থেকে! ‘করোনা আবহে’ প্রতিটি বুথেই থার্মাল গান

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, মেদিনীপুর, ১৭ মার্চ: ‘করোনা আবহে’র মধ্যেই ৫ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। এই পরিস্থিতিতে, বিভিন্ন সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে নির্বাচন কমিশনের তরফে। একদিকে যেমন ‘করোনা আক্রান্ত’দের বাড়িতে বসেই পোস্টাল ব্যালটে ভোটদানের ব্যবস্থা করা হয়েছে; ঠিক তেমনই প্রিসাইডিং অফিসারদের এবারের নির্বাচনে দেওয়া হচ্ছে থার্মাল গান বা IR Thermometer। প্রতিটি ভোটারের দৈহিক তাপমাত্রা পরীক্ষার পরই, তাঁকে বুথে প্রবেশ করার বা লাইনে দাঁড়ানোর অনুমতি দেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই, এই বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। রাজ্যের স্বাস্থ্য সচিব নারায়ণ স্বরূপ নিগম একটি চিঠিতে নির্বাচন কমিশনের হাতে IR Thermometer তুলে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন। তবে, তা যাতে যত্নের সঙ্গে বা সচেতনতার সাথে ব্যবহার করে পুনরায় রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের হাতে তুলে দেওয়া হয়, সেই বিষয়েও আবেদন করা হয়েছে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, নির্বাচন কমিশনের তরফে প্রতিটি বুথের প্রধান দায়িত্বে থাকা প্রিসাইডিং অফিসারের হাতে একটি করে থার্মাল গান এবং অতিরিক্ত ২ টি ব্যাটারি তুলে দেওয়া হবে। ভোটপর্ব মিটে গেলে, ইভিএম, ব্যালট বাক্স সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ জিনিসের সাথে সাথে RC তে এসে এই থার্মাল গানও যত্নের সঙ্গে ফেরত দিতে হবে। এমনটাই জানা গেছে নির্বাচন কমিশন সূত্রে।

thebengalpost.in
IR Thermometer :

অন্যদিকে, অশীতিপর (৮০ বছরের উর্ধ্বে) প্রৌঢ় বা প্রৌঢ়া, দিব্যাঙ্গ বা শারীরিকভাবে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন (প্রতিবন্ধী) এবং করোনা আক্রান্ত ভোটারদের জন্য নির্বাচন কমিশন এবার ভোটদানের বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। বাড়িতে বসেই পোস্টাল ব্যালটে (12 B Form) তাঁরা ভোট দিতে পারবেন। পূর্ব মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম জেলায় মঙ্গলবার থেকেই সেই প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। অর্থাৎ, বলা চলে রাজ্যে ভোটদান প্রক্রিয়া একপ্রকার শুরু হয়ে গেল! পশ্চিম মেদিনীপুরে আজ, বুধবার থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হবে। প্রথম দফার ক্ষেত্রে এই প্রক্রিয়া চলবে ২৭ শে মার্চ পর্যন্ত। এমনটাই জানা গেছে নির্বাচন কমিশন সূত্রে। আজ, ঝাড়গ্রাম ও পূর্ব মেদিনীপুরের ক্ষেত্রে দেখা গেছে, নির্বাচন কমিশনের তরফে একজন ভোটকর্মী এবং কেন্দ্র ও রাজ্য পুলিশের ২ জন জওয়ান ও একজন চিত্রগ্রাহক বা ফটোগ্রাফার ওই ভোটারের বাড়িতে পৌঁছে গেলেন। বাড়িতেই তৈরি করে দেওয়া হল, ভোটকক্ষ। এরপর, সই/আঙুলের ছাপ দেওয়ার পর, ভোটকক্ষে গিয়ে পোস্টাল ব্যালটে ভোট দিলেন ওই ভোটাররা। সম্পূর্ণ গোপনীয়তা বজায় রেখে এবং বিশ্বাসযোগ্য ভাবে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হচ্ছে, ভোটকর্মী বা নির্বাচন কমিশনের তরফে। কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

thebengalpost.in
কড়া নিরাপত্তার মধ্যে ভোটদান :

thebengalpost.in
বিজ্ঞাপন (Advertisement) :

আরও পড়ুন -   'নির্দল কাঁটা' দূর হল অনেকটাই! প্রথম দফার ৬ আসনে ৩৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন পশ্চিম মেদিনীপুরে