পশ্চিম মেদিনীপুরে করোনা বিস্ফোরণ! একদিনে আক্রান্ত ২২১, আইআইটি কর্মীর মৃত্যু, জরুরি বৈঠকে জেলা প্রশাসন ও রাজ্য নিযুক্ত নোডাল অফিসার

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২০ এপ্রিল: ভয়াবহ পরিস্থিতি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায়! মাত্র ২৪ ঘন্টায় (একদিনে) করোনা আক্রান্ত হলেন ২২১ জন। মঙ্গলবার সকালে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে প্রাপ্ত এই তথ্য দেখে চক্ষু চড়কগাছ সংশ্লিষ্ট সব মহলেই! জেলায় এ যাবৎকালের ভয়ঙ্কর করোনা বিস্ফোরণ বললেও কম হয়না! সংক্রমিতদের অনেকেই স্বল্প উপসর্গযুক্ত হলেও, সংক্রমণ বৃদ্ধির এই হার নিঃসন্দেহে আশঙ্কার। ইতিমধ্যে, গত ৭২ ঘন্টায় ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে সূত্রের খবর। গতকাল (১৯ এপ্রিল) রাতে খড়্গপুর শহরে এক করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর শহরের ৩৪ নং ওয়ার্ডের রবীন্দ্রপল্লী এলাকায় গতকাল রাতে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় ওই ব্যাক্তির। ৫৩ বছর বয়সী ওই ব্যাক্তি আইআইটি খড়্গপুরের (IIT Kharagpur) কর্মী ছিলেন। ১৮ই এপ্রিল করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। ১৯ শে এপ্রিল রাত ১০টা নাগাদ আইআইটি খড়্গপুরের বি.সি রায় টেকনোলজি হাসপাতালে মারা যান বলে জানান হসপিটাল ইনচার্জ এস সান্নিগ্রাহী। আজ সকালে ৩৪ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের উদ্যোগে মৃতের বাড়ি স্যানিটাইজ বা জীবাণুমুক্ত করা হয়।

thebengalpost.in
খড়্গপুরে মৃত আইআইটি কর্মীর বাড়িতে স্যানিটাইজেশন :

অপরদিকে, গত চব্বিশ ঘণ্টায় পশ্চিম মেদিনীপুরে জেলায় যে ২২১ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন, তার মধ্যে শুধু রেলশহর খড়্গপুরেরই ৭৩! এর মধ্যে রেলকর্মীই প্রায় ৫০ জন। এছাড়াও আইআইটি খড়্গপুরের কর্মী ছাড়াও শহরের সাধারণ বাসিন্দারা আছেন। মেদিনীপুর সদর ব্লক, মেদিনীপুর পৌরসভা এবং মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসাধীন সহ জেলা শহরে আক্রান্ত ৫০ জন। এর মধ্যে, গুড়গুড়িপাল এলাকায় ৩ জন এবং মেদিনীপুর সদর ব্লকের রামনগরে ১ আছেন, মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসাধীন ৫-৬ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এছাড়া, মেদিনীপুর শহরে প্রায় ৪০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন একদিনে! আবাস থেকে নতুনবাজার, শরৎপল্লী থেকে বিধান নগর, হাতার মাঠ থেকে রবীন্দ্রনগর সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে করোনা সংক্রমণ! অপরদিকে, ঘাটাল মহকুমায় ৪০ জন, শালবনীতে ১১ জন (OCL ২, BRB ২, কোবরা ১, চৈতা ২, চকতারিনী শালবনী ২, ভাদুতলা ১, বিষ্ণুপুর ১) জন সংক্রমিত হয়েছেন। গড়বেতা ও গোয়ালতোড় মিলিয়ে ১০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বেলদা, দাঁতন মিলিয়ে ৯ জন সংক্রমিত। সবংয়ে ২ জন (লুটুনিয়া, বড়ছড়া ৩ নং), ডেবরায় (রামপুরা) ১ জন, কেশিয়াড়িতে ২ জন‌ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে।

thebengalpost.in
এখনও হুঁশ নেই খড়্গপুর-মেদিনীপুরের :

এদিকে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সংক্রমণ পরিস্থিতি ক্রমেই উদ্বেগজনক হয়ে ওঠায়, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আজ জেলা প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক ডাকা হয়েছে। এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন, রাজ্যের পঞ্চায়েত সচিব তথা করোনা মোকাবিলায় এই জেলার “নোডাল অফিসার” রূপে নিযুক্ত এম ভি রাও (M. V. Rao)। তিনি একসময় অবিভক্ত মেদিনীপুরের জেলাশাসক (District Magistrate) ছিলেন। আজ মেদিনীপুর শহরের সার্কিট হাউসে পঞ্চায়েত সচিব এম.ভি. রাও এর সঙ্গে জরুরি বৈঠক করবেন পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলাশাসক জেলাশাসক, জেলা পুলিশ সুপার, জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক, উপ মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক বৃন্দ সহ অন্যান্য আধিকারিকরা। তবে, পরিস্থিতি এখনও নিয়ন্ত্রণের বাইরে যায়নি এবং সংক্রমণ প্রতিরোধে সমস্ত ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জেলাশাসক ডঃ রশ্মি কমল। জেলার স্বাস্থ্য আধিকারিকরা জানিয়েছেন, জেলায় চিকিৎসা পরিকাঠামো প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আজকের বৈঠক থেকেও প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন -   'হঠাৎ আগুন লাগলে' কি করবেন পুজো উদ্যোক্তারা, প্রশিক্ষণ দিল মেদিনীপুর দমকল বাহিনী, জীবাণুমুক্ত করা হল শহরের পুজো মণ্ডপ ও রাস্তাঘাটগুলি