করোনা সংক্রমণ রুখতে দেশজুড়ে লকডাউনের পরামর্শ সুপ্রিম কোর্টের, দেশে দৈনিক সংক্রমণ সামান্য কমলেও রাজ্যে কিছুটা বাড়ল

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, নিউ দিল্লি, ৩ মে: দেশজুড়ে একনাগাড়ে বেড়ে চলা সংক্রমণের গ্রাফ এবার কিছুটা নিম্নমুখী! তবে, গতকাল ‘রবিবার’ হওয়ায় দেশের অনেক সরকারি ল্যাবরেটরি বন্ধ রাখা হয়। সংক্রমণ কমার এটাও অন্যতম কারণ। অন্যদিকে, গত ২৪ ঘন্টায় দৈনিক সংক্রমণের হার কিছুটা কমলেও, বেড়েছে অ্যাকটিভ বা সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা। সপ্তাহের প্রথম দিনে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৩ লক্ষ ৬৮ হাজার ১৪৭ জন। রবিবারের তুলনায় এই সংখ্যাটা প্রায় চার হাজার কম। পাশাপাশি, মৃত্যু হয়েছে ৩৪১৭ জনের। রবিবার এই সংখ্যাটাও ছিল বেশি। গত চব্বিশ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৩ লক্ষ ৭৩২ জন। তবে, এই মুহূর্তে দেশের অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা মোট ৩৪ লক্ষ ১৩ হাজার ৬৪২। এই বিপুল অঙ্কের সংখ্যাটাই চিন্তা বাড়াচ্ছে বিশেষজ্ঞদের। এদিকে, এখনও পর্যন্ত দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৯৯ লক্ষ ২৫ হাজার ৬০৪। মৃত্যু হয়েছে মোট ২ লক্ষ ১৮ হাজার ৯৫৯ জনের। পাশাপাশি এই ভাইরাসের প্রকোপ থেকে সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ১ কোটি ৬২ লক্ষ ৯ ৩ হাজার ৩ জন। এদিকে, সারা দেশের প্রায় ১৫ কোটি ৭১ লক্ষ ৯৮ হাজার ২০৭ জন করোনা ভ্যাকসিন নিয়েছেন।

thebengalpost.in
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের বুলেটিন :

অন্যদিকে, দেশজুড়ে চলা ভয়াবহ করোনা সংক্রমণের ঢেউ রুখতে সুপ্রিম কোর্ট একটি স্বতঃপ্রণোদিত মামলায় জানিয়েছে, “অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ মাত্রাছাড়া হয়েছে। আমরা কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলিকে নির্দেশ দিচ্ছি, সংক্রমণ রোধে ভবিষ্যতে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে তা নিয়ে পরিকল্পনা করতে।” এই নির্দেশের পরই দেশের শীর্ষ আদালতের পরামর্শ, “কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলোর কাছে আবেদন ভিড় এবং সুপার স্প্রেডার অনুষ্ঠানের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করুন। প্রাণঘাতী ভাইরাসের প্রকোপ রুখতে আপনারা লকডাউনের বিষয়টিও ভেবে দেখতে পারেন।” করোনা ভাইরাস সংক্রমণের শৃঙ্খল (চেইন) ভাঙতেই কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলিকে লকডাউন জারির পরামর্শ দিয়েছে শীর্ষ আদালত, এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। অন্যদিকে, প্রতিটি রাজ্য সরকার’কে এও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, করোনা রোগীর ঠিকানা যাই হোক না কেন, কোনো রোগীকেই ফেরাতে পারবেনা হাসপাতালগুলি। মহামারী আইনকেও আরও সঠিকভাবে বলবৎ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার গুলিকে। এদিকে, দেশে করোনা সংক্রমণ সামান্য কমলেও রাজ্যে কিছুটা বেড়েছে সংক্রমণ। গত চব্বিশ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ১৭ হাজার ৫১৫ জন। গত চব্বিশ ঘণ্টায় অবশ্য মৃত্যু সামান্য কমে হয়েছে ৯২। গত চব্বিশ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ হাজার ৫৮৭ জন।

thebengalpost.in
রাজ্যের করোনা বুলেটিন :

আরও পড়ুন -   "করোনা মুক্ত অমিত শাহ" ভুয়ো মেসেজ ছড়িয়ে বিপাকে বিজেপি সাংসদ