বিজেপি প্রার্থীর পোস্টার ছেঁড়া নিয়ে চাঞ্চল্য মেদিনীপুর শহরে, অভিযোগের আঙুল তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের দিকে

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, মেদিনীপুর, ১৭ মার্চ : সাতসকালেই মেদিনীপুর শহরে বিজেপি প্রার্থী’র পোস্টার ছেঁড়া নিয়ে উত্তেজনা ছড়াল! মেদিনীপুর শহরের ১৩ নং ওয়ার্ড, পানপাড়া এলাকায় বিজেপি প্রার্থী শমিত কুমার দাশের নামে যে পোস্টার ও ব্যানারগুলি দেওয়া হয়েছিল বিজেপির তরফে, সেগুলিই ছেঁড়া হয় বলে অভিযোগ। স্থানীয় কর্মীদের মারফত এই খবর পেয়ে, ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান স্বয়ং প্রার্থী শমিত কুমার দাশ। এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। শমিত বাবু সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন, “এই এলাকায় যখন থেকে, পোস্টার ও ব্যানার দিচ্ছিলেন আমাদের কর্মীরা, তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা সেই সময় থেকেই তাদের হুমকি দিচ্ছিলেন। তারাই এই কাজ করেছে। গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় এই ধরনের নোংরামি মেনে নেওয়া যায় না!”

thebengalpost.in
বিজেপি প্রার্থীর পোস্টার ছেঁড়া নিয়ে চাঞ্চল্য মেদিনীপুর শহরে, অভিযোগের আঙুল তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের দিকে :

মেদিনীপুর শহরের মিয়াবাজার সংলগ্ন পানপাড়া এলাকাতে গিয়ে আজ দেখা যায়, অন্যান্য দলীয় প্রার্থীদের পোস্টার গুলি অবিকৃত অবস্থায় থাকলেও, বিজেপি প্রার্থীর পোস্টার গুলি ছেঁড়া অবস্থায় মাটিতে গড়াগড়ি খাচ্ছে! এই ঘটনায়, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলা হলেও, তৃণমূলের তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। তবে, বিজেপির প্রাক্তন জেলা সভাপতি তথা মেদিনীপুর বিধানসভার প্রার্থী শমিত কুমার দাশের অভিযোগ, “সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এই এলাকার অনেক মানুষ এখন আমাদের সমর্থন করছেন। আর তা দেখেই গাত্রদাহ হচ্ছে তৃণমূলের! তাই, এই এলাকার তৃণমূল কংগ্রেসের কয়েকজন নেতা এই কাজ করিয়েছেন। তৃণমূলের পায়ের নিচ থেকে মাটি সরে গেছে বলেই, এইসব কাজ করছে।” এই বিষয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা নেতা সুজয় হাজরা বললেন, “অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাকর্মীরা কখনোই এইসব কাজ করতে পারেন না! তৃণমূল কংগ্রেস বাদ দিয়েও অন্যান্য সমস্ত রাজনৈতিক দলের পোস্টার এই এলাকাতেও বিরাজ করছে। সেক্ষেত্রে, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে উত্তেজনা ছড়ানোর জন্য এই কাজ কেউ বা কারা করেছে বলে আমাদের মনে হয়। তবে, যেই বা যারাই এই কাজ করুক না কেন, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় এসব করা উচিত নয়।”

thebengalpost.in
ছেঁড়া হল পোস্টার :

thebengalpost.in
বিজ্ঞাপন (Advertisement) :

আরও পড়ুন -   বার্জটাউন, গেটবাজার, অরবিন্দনগর, ভীমচক সহ মেদিনীপুর শহর জুড়ে সংক্রমিত ৩১, খড়্গপুর, সবং,‌ শালবনী, গড়বেতা, কেশপুর সহ জেলায় ১৪৯