সুদূর বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসা করাতে এসে মেদিনীপুরে প্রতারিত হওয়ার অভিযোগ, জেলা পুলিশের দ্বারস্থ পরিবার

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২১ এপ্রিল: স্ত্রী’র চিকিৎসা করাতে এসে মেদিনীপুরের এক যুবকের দ্বারা প্রতারণার স্বীকার হলেন, বাংলাদেশের যশোর জেলার নোয়াপাড়ার অন্তর্গত অভয়ানগরের আবুল কালাম শেখ (৬২)। জানা যায়, বাংলাদেশের বাসিন্দা আবুল কালাম শেখের স্ত্রী নার্গিস বেগমের ব্রেন টিউমারের চিকিৎসার জন্য স্ত্রী’কে নিয়ে গত তিন-চার মাস আগে (২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২০) মেদিনীপুরের নজরগঞ্জের বাসিন্দা শেখ বাদশা নামে এক আত্মীয়ের বাড়িতে এসে ওঠেন আবুল কালাম শেখ। মেদিনীপুরে থাকাকালীন শেখ বাদশার ছেলে শেখ রাজু আবুল কালাম বাবুকে বলে, তাঁর স্ত্রী’র ব্রেন টিউমারের চিকিৎসার সমস্ত ব্যবস্থা সে করে দেবে এবং চিকিৎসার সমস্ত খরচের টাকা তার অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দিতে হবে। সেইমতো, আবুল কালাম বাবু বাংলাদেশে তাঁর বাড়িতে ফোন করে, নিজের মেয়েদের বলেন, রাজুর অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতে। বাবার কথামতো, মেয়েরা জমিজমা ও বাড়ির গরু, ছাগল বিক্রি করে অনেক কষ্টে ১ লাখ ৮৭ হাজার টাকা রাজুর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেয়। এরপর, ওই পরিবারকে নিয়ে রাজু ব্যাঙ্গালোরের উদ্দেশ্যে পাড়ি দেয় চিকিৎসার জন্য। তারপর, ব্যাঙ্গালোরে সাঁইবাবা হাসপাতালে বিনামূল্যে ট্রিটমেন্ট করায় প্রায় ১ মাস ৫ দিন ধরে। কিন্তু, ভিসা শেষ হওয়ার দরুন এরপর ব্যাঙ্গালোর সাঁইবাবা কর্তৃপক্ষ তাদের ভিসার এক্সপায়ারি ডেট বাড়ানোর জন্য আবেদন করতে বলেন। সেই মোতাবেক আবার মেদিনীপুরে ফিরে আসে এই বাংলাদেশী পরিবার। এরপর, আবুল কালাম শেখ পুনরায় ভিসার ডেট বাড়ানোর আবেদন করেন এবং পুনরায় ব্যাঙ্গালোর যেতে চাইলে, রাজু জানায় আরও টাকা লাগবে। কারণ তাকে দেওয়া ১ লক্ষ ৮৭ হাজার টাকা খরচা হয়ে গেছে ইতিমধ্যে! যা শুনে মাথায় হাত পড়ে ওই পরিবারের! কারণ, তাঁরা জমিজমা, গরু-ছাগল বিক্রি করে ১ লক্ষ ৮৭ হাজার টাকা জোগাড় করেছিলেন এবং চিকিৎসা বাবদ সেরকম কোনও খরচও হয়নি। তাহলে, কিভাবে ওই টাকা শেষ হল, তা জানতে চায় ওই পরিবার। এই নিয়ে রাজুর সঙ্গে শুরু হয় গন্ডগোল! যদিও রাজু তার হিসাব দেখাতে পারেনি।

thebengalpost.in
প্রতারিত পরিবার জেলা পুলিশের দ্বারস্থ :

thebengalpost.in
বাংলাদেশের পরিবার মেদিনীপুরের আত্মীয় পরিবারের দ্বারা প্রতারিত :

এদিকে, খরচ হয়ে যাওয়া সমস্ত টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য রাজু সময় চায় ওই পরিবারের কাছে। কিন্তু, প্রায় তিন মাস হয়ে গেলেও সেই টাকা ফেরত দিচ্ছে না বলে রাজুর বিরুদ্ধে অভিযোগ। যার ফলে স্ত্রী’র ব্রেইন টিউমারের চিকিৎসাও করাতে পারছেন না আবুল কালাম বাবু। এদিকে, বাড়িও ফিরে যেতে পারছেন না তিনি। এরপর, ওই বাংলাদেশী নাগরিক দ্বারস্থ হন পাটনা বাজার ফাঁড়িতে ও সাইবার ক্রাইমে। কাজ না হওয়ায় কোতোয়ালী থানায়। তাতেও কাজ না হওয়ায়, অসুস্থ স্ত্রী’কে অ্যাম্বুলেন্সে নিয়েই থানায় হাজির হন আবুল কালাম বাবু। থানা থেকে সাহায্য না পেয়ে দ্বারস্থ হন, জেলা পুলিশ সুপারের অফিসে। বিষয়টি পুলিশ সুপার অফিসেও অভিযোগ আকারে জানিয়েছেন তিনি। মেদিনীপুর শহরের নজরগঞ্জের এক স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, “বাংলাদেশ থেকে মেদিনীপুরে এসে একজন প্রতারণার স্বীকার হলেন এবং পুলিশ প্রশাসনের কাছ থেকেও কোনো সাহায্য পাচ্ছেন না এটা বাংলা তথা মেদিনীপুরের মানুষ হিসেবে আমাদের লজ্জা!”

thebengalpost.in
জেলা পুলিশের দ্বারস্থ প্রতারিত পরিবার :

thebengalpost.in
আবুল কালাম শেখের পাসপোর্ট :

আরও পড়ুন -   উত্তরপ্রদেশে খুন-ধর্ষণ, রাজ্যে শিক্ষক আক্রমণ! মেদিনীপুর বাম ছাত্র-যুবদের গর্জন