মমতার মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে কমিশনে বিজেপি, আমল দিলনা কমিশন

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পূর্ব মেদিনীপুর, ১৫ মার্চ: এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মনোনয়নপত্র বাতিলের দাবি তুললেন নন্দীগ্রামে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী শুভেন্দু অধিকারী। আজ পূর্ব মেদিনীপুরের একটি সভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ৬ টি ফৌজদারি মামলা থাকার অভিযোগ করেন শুভেন্দু। তারপরই, মমতার বিরুদ্ধে হলফনামায় ফৌজদারি মামলা সংক্রান্ত ‘তথ্য গোপন’ এর অভিযোগ তুলে তাঁর মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে সোমবার নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হলেন, নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর নির্বাচনী এজেন্ট মেঘনাদ পাল এবং বিজেপি আইনজীবী সেলের সদস্যেরা। কিন্তু, কমিশনের পদক্ষেপে স্পষ্ট, সেই অভিযোগ আমল দেওয়া হয়নি।

thebengalpost.in
শুভেন্দু অধিকারী :

প্রসঙ্গত, আজই (সোমবার) ছিল, দ্বিতীয় দফার মনোনয়নপত্র পরীক্ষার চূড়ান্ত দিন। সোমবার বিকেল ৫ টার আগে তাই রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দ্বারস্থ হয়েছিলেন বিজেপি’র আইনজীবী সেলের প্রতিনিধিরা। শুভেন্দুর প্রতিনিধি মেঘনাদ পাল তার আগেই নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রের রিটার্নি অফিসারের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন বলে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা বিজেপি সূত্রের খবর। যে ৬ টি ফৌজদারি মামলা’র উল্লেখ করা হয়েছিল বিজেপির তরফে, সেগুলি হল-: ১। প্রথমটি-র কেস নম্বর ২৮৬/২০১৮ আন্ডার সেকশনস ২০বি, ১৫৩এ এবং ১৯৮-এর ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা, যা অসমের গীতা নগর থানায় দায়ের হয়েছিল।
২। কেস নম্বর ৪৬৬/২০১৮ আন্ডার সেকশনস ১২০বি, ১৫৩এ, ২৯৪, ২৯৮ এবং ৫০৬-এর ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা, যা অসমের পান বাজার থানায় দায়ের হয়েছিল।
৩। কেস নম্বর ২৮৮/২০১৮ আন্ডার সেকশনস ১২১, ১৫৩এ-র ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা, যা অসমের জাগিররোড থানায় দায়ের হয়েছিল।
৪। কেস নম্বর ৮৩২/২০১৮ আন্ডার সেকশনস ১২০বি এবং ১৫৩এ-র ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা, যা অসমের উত্তর লাখিমপুর সদর পুলিশ স্টেশনে দায়ের করা হয়েছিল।
৫। কেস নম্বর ১৭৭/২০১৮- আন্ডার সেকশনস- ৩৫৩, ৩২৩ এবং ৩৩৮-এর ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা, যা অসমের উদ্ধারবন্ধ থানায় দায়ের হয়েছিল।
৬। কেস নম্বর আরসি ০১০২০০০৮এ০০২৩/২০০৮ কেসটি দায়ের করেছিল সিবিআই, কলকাতার নিজাম প্যালেসে।

তবে, বিকেল ৫ টার পর বৈধ প্রার্থী হিসেবে কমিশনের ওয়েবসাইটে উঠে যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম। এদিকে, CBI এর তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, তাঁদের খাতায় যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে মামলা আছে, তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন, একজন সরকারি কর্মচারীর স্ত্রী! তবে, বাকি ৫ টি মামলা মুখ্যমন্ত্রী’র বিরুদ্ধে অসমে হয়েছিল বলে জানা যায়। এই বিষয়ে, তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ বলেন, “জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়ার ভয়েই শুভেন্দু অধিকারী এইসব অভিযোগ করেছেন!”

thebengalpost.in
বিজ্ঞাপন (Advertisement) :

আরও পড়ুন -   এবার করোনা সংক্রমিত পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, আরোগ্য কামনায় অনুগামীরা