১৩৫ বলে ১০০ রান উঠে গেছে, ১৫৯ বলে মাত্র ৪৮ রান দরকার! “চার-ছয়” মারার জন্য ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রী

thebengalpost.in
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পূর্ব বর্ধমানে :

দ্য বেঙ্গল পোস্ট প্রতিবেদন, পূর্ব বর্ধমান, ১২ এপ্রিল: ১৩৫ বলে ১০০ রান উঠে গেছে, ১৫৯ বলে মাত্র ৪৮ রান দরকার! আজ পূর্ব বর্ধমানের এক জনসভায় এমন মন্তব্যই করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রাজ্যে প্রথম চার দফা নির্বাচন শেষ হয়েছে, আগামী ১৭ ই এপ্রিল পঞ্চম দফা নির্বাচনের জন্য জোর প্রচার চলছে রাজ্যজুড়ে। সেই প্রচারে এসেই প্রধানমন্ত্রী বললেন, “৪ দফায় বাংলার জনগণ এত চার-ছাক্কা মেরেছে, যে বিজেপি সেঞ্চুরি করে ফেলেছে!” প্রধানমন্ত্রী’র বক্তব্য অনুযায়ী, প্রথম দফার ১৩৫ টি (৩০,৩০,৩১,৪৪) আসন থেকে বিজেপি কমপক্ষে ১০০ টি আসন পেতে চলেছে! তাই, সরকার গঠন করার জন্য আর মাত্র ৪৮ টি আসন প্রয়োজন অবশিষ্ট চার দফার ১৫৯ টি আসন থেকে। যদিও, বিজেপির স্লোগান অবশ্য, “২০০ পার”!

thebengalpost.in
নরেন্দ্র মোদি :

পূর্ব বর্ধমানের তালিতে আউশগ্রামের বিজেপি প্রার্থী কলিতা মাঝি সহ জেলায় দলের সব প্রার্থীদের নিয়ে আজ সভা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সভা থেকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বর্ধমানের দুটি জিনিস প্রসিদ্ধ, চাল ও মিহিদানা। বর্ধমানের মিহিদানা কি দিদি পছন্দ করেন না? তাহলে ওঁর এত তিক্ততা কোথা থেকে এল? আসলে দিদির হতাশা বাড়ছে। সবে ৪ দফা ভোটগ্রহণ হয়েছে। অর্ধেক নির্বাচনেই তৃণমূলকে আপনারা সাফ করে দিয়েছেন। ৪ দফায় বাংলার জনগণ এত চার-ছাক্কা মেরেছে, যে বিজেপি সেঞ্চুরি করে ফেলেছে। যাঁরা আপনাদের সঙ্গে খেলা করার কথা ভাবছিলেন, তাঁদের সঙ্গে খেলা হয়ে গিয়েছে। আপনারাই বলুন, দিদির রাগ তো স্বাভাবিক!”

thebengalpost.in
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পূর্ব বর্ধমানে :

এদিনের সভায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এও দাবি করেন, নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় “বোল্ড আউট” হয়ে গেছেন! তিনি বলেন, “নন্দীগ্রামের মানুষ দিদিকে ক্লিন বোল্ড করে দিয়েছেন। দিদির ইনিংস শেষ বাংলায়। দিদির বড় পরিকল্পনা ফেল করে দিয়েছেন বাংলার লোকেরা। বাংলার মানুষ বুদ্ধিমান ও দূরদৃষ্টিসম্পন্ন। দলের অধিনায়কত্ব ভাইপোকে দিতে চেয়েছিলেন দিদি। দিদির এই খেলা সময় থাকতে ধরে ফেলেছে জনতা! দিদির গোটা টিমকেই ময়দান ছাড়া করছে মানুষ।” এভাবেই আজ মুখ্যমন্ত্রী’কে কটাক্ষ করেন প্রধানমন্ত্রী।

আরও পড়ুন -   ডেবরা থানা মহাবিদ্যালয়ে চলা পঞ্চম দিনের 'আমরণ অনশনে' অসুস্থ একাধিক অস্থায়ী কলেজ কর্মচারী