মেদিনীপুর শহরের প্রসিদ্ধ চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত, মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি গোয়ালতোড়ের যুবকের রিপোর্টও পজিটিভ

মণিরাজ ঘোষ, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২৮ জুলাই : মেদিনীপুর শহরের প্রসিদ্ধ চক্ষু রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ মোহিনী মোহন মন্ডল (৬৯) করোনা আক্রান্ত হলেন। জ্বরের উপসর্গ থাকায়, গত ২৫ জুলাই তিনি আয়ুশ হাসপাতালে গিয়ে লালারস দিয়ে এসেছিলেন। ২৬ জুলাই সন্ধ্যায় তাঁর রিপোর্ট নেগেটিভ হলেও, সন্দেহ ছিল! তাই, স্বাস্থ্য ভবনের উদ্যোগে, পুনরায় গতকাল (২৭ জুলাই) টেস্ট করা হয়; দেখা যায় রিপোর্ট পজিটিভ! ইতিমধ্যে, ডাঃ মন্ডলের রবীন্দ্রনগর (অরবিন্দ স্টেডিয়াম রোড) স্থিত বাড়িটি আজ দুপুরেই কনটেইনমেন্ট করা হয়েছে এবং তাঁকে লেভেল ফোর শালবনী করোনা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। তাঁর পরিবার-পরিজন এবং সংস্পর্শে থাকাদের কোয়ারেন্টিন এবং করোনা পরীক্ষার বিষয়ে জেলা স্বাস্থ্য ভবন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে জানা যায়।

আরও পড়ুন -   পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় সুস্থতার হার প্রায় ৭৩ শতাংশ, মৃত্যুর হার ২.৩৩ শতাংশ, দেখে নিন কোন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কতজন এবং কতগুলি শয্যা খালি আছে
thebengalpost.in
মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে ফের দুই রোগী করোনা আক্রান্ত :

এদিকে, ফের মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসাধীন দু’জনের শরীরে পাওয়া গেল করোনা ভাইরাসের জীবাণু। সোমবার (২৭ জুলাই) রাতে, জেলা স্বাস্থ্য ভবনের রিপোর্ট অনুযায়ী, গোয়ালতোড়ের (তিলাবনী) এক যুবক (২৬) এবং ঘাটালের এক প্রৌঢ় (৭৩)’র করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ। দু’জনের শরীরেই করোনা’র উপসর্গ দেখা দিয়েছিল, তাই মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ রবিবার (২৬ জুলাই) তাঁদের লালারস সংগ্রহ করেছিল। সোমবার তাঁদের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গোয়ালতোড়ের ওই যুবক কয়েকদিন আগে ব্যাঙ্গালোর থেকে ফিরেছিলেন। সম্প্রতি, তাঁর জ্বর হওয়ায় মেদিনীপুর মেডিক্যালে ভর্তি হয়েছিলেন। ঘাটালের ওই প্রৌঢ়ের মধ্যেও জ্বর ও শ্বাসকষ্টের উপসর্গ ছিল বলে জানা গেছে হাসপাতাল সূত্রে। মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ পঞ্চানন কুন্ডু জানিয়েছেন, “যাঁদের শরীরে বিশেষ উপসর্গ দেখা দিচ্ছে, তাঁদের পৃথক একটি ওয়ার্ডে রাখা হচ্ছে এবং সোয়াব টেস্ট করা হচ্ছে। আক্রান্ত দু’জন ছাড়াও রবিবার ১০ জনের সোয়াব টেস্ট করা হয়েছে। ২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এবং বাকিদের নেগেটিভ এসেছে। আক্রান্ত ২ জনকে শালবনী করোনা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।”